পোস্টগুলি

application of retake exam

25 October 2017To
The Principal 
Section/Department 
St. Peter's School Dear sir , / Madam ,Sub: Request for Re-examination .
with due respect I want to put my humble request to you for allowing me for a re-examination. I know it is a tough decision to take from your end . But sir it is not as tough as my health problem from which I have come out somehow. I have been suffering from a critical illness that spoiled my right time of my carrier. If you will consider my request then you can save my carrier . During my illness time I tried to write the first paper but I couldn't sit for 10 minutes in the examination hall .I , therefore , request you to kindly consider my case as different from normal cases. I am ready to pay extra examination fee if it will be in my reach.Thanking you,
Yours faithfully / sincerly/ Truly / Faithfully etc
[ YOUR NAME] 
Mobile Number/ SIM Number 
Address

তাহসান - স্পর্শের বাহিরে তুমি।

ফ্রেমে বন্দী কোন ক্যামেরায়
গ্রীষ্মের পড়ন্ত বিকেল তুমি
অথবা বর্ষার আকাশে মেঘের আলোতে
লুকিয়ে থাকা ঐ রোঁদ তুমি
তোমার ঐ মৃদকালো চোখের ভাষা
মাতাল করা হাসি আর ভেঁজা চুলে
গোলাপি ঐ ঠোঁটের বেলকনিতে
রংতুলিতে আঁকা আমার অবসর বিকেল
সব তুলনার ঊর্ধ্বে তুমি
আজও তোমার স্পর্শ লোভে
খুঁজি তোমায় স্বপ্ন গানে
আজো তোমার অপেক্ষাতে
টুকরো কিছু ভাগ্যে স্বপ্নে অমর
মাঝখানে অদৃশ্য দেয়াল
খুঁজেফিরি তোমায় কোন মায়ায়
হারিয়ে যেন উপহাসে
হারিয়ে সেই সকাল
হারিয়ে সেই বিকেল
বৃষ্টি ভেঁজা দুপুর, অলস মেঘ রোদ্দুর
আসবে না জানি ফিরে
খুঁজি তোমায় স্বপ্ন গানে
আজো তোমার অপেক্ষাতে
খুঁজি তোমায় স্বপ্ন গানে
আজো তোমার স্পর্শ লোভে
কোন এক স্বপ্ন সুখের গল্পের রানী হয়ে
কোন এক আঁধার রাতের জোনাক তুমি হয়ে
তুমি যেন সব অপূর্ণতার পূর্ণ হয়ে
এতো কাছে থেকেও কেন স্পর্শের বাইরে
খুঁজি তোমায় স্বপ্ন গানে
আজো তোমার অপেক্ষাতে
খুঁজি তোমায় স্বপ্ন গানে
আজো তোমার স্পর্শ লোভে…

লালন - জাত গেল জাত

জাত গেল জাত গেল বলে
একি আজব কারখানা
সত্য কাজে কেউ নয় রাজি
সবি দেখি তা না-না-না।।
আসবার কালে কি জাত ছিলে
এসে তুমি কি জাত নিলে,
কি জাত হবা যাবার কালে
সে কথা ভেবে বল না।।
ব্রাহ্মণ চন্ডাল চামার মুচি
এক জলেই সব হয় গো শুচি,
দেখে শুনে হয় না রুচি
যমে তো কাকেও ছাড়বে না।।
গোপনে যে বেশ্যার ভাত খায়,
তাতে ধর্মের কি ক্ষতি হয়।
লালন বলে জাত কারে কয়
এ ভ্রম তো গেল না।।

লালন শাহ - মিলন হবে কত দিনে.?

মিলন হবে কত দিনে
আমার মনের মানুষের সনে।।
চাতক প্রায় অহর্নিশি
চেয়ে আছি কালো শশী
হব বলে চরণ-দাসী,
ও তা হয় না কপাল-গুণে।।
মেঘের বিদ্যুৎ মেঘেই যেমন
লুকালে না পাই অন্বেষণ,
কালারে হারায়ে তেমন
ঐ রূপ হেরি এ দর্পণে।।
যখন ও-রূপ স্মরণ হয়,
থাকে না লোক-লজ্জার ভয়-
লালন ফকির ভেবে বলে সদাই
(ঐ) প্রেম যে করে সে জানে।।

আসিফের কিছু ভালো লাগার গান।

ভালবাসি আমি তোমাকে তুমি বুঝলে নাহৃদয়ের কথা কখনো তুমি জানলে না (২)কিভাবে বেচে আছি চেয়ে দেখলে নাএকাকী জীবন আমার শুধুই ছলনাভালবাসি আমি তোমাকে তুমি বুঝলে নাহৃদয়ের কথা কখনো তুমি জানলে না

স্বপ্ন দেখাটা ভুল ছিল, হৃদয়ে লেখা নাম মুছে গেলপড়ে থাকা সব স্মৃতিগুলো, জীবন করে দেয় এলোমেলো(২)যত দূরে থাক অজানায়, ভুলতে তোমাকে পারব নাভালবাসি আমি তোমাকে তুমি বুঝলে নাহৃদয়ের কথা কখনো তুমি জানলে না 

সন্ধ্যা তারা জ্বলে আকাশেতে, বিরহ দীপ জ্বলে হৃদয়েতেকষ্টের জলে ভাসে সুখগুলো, বালুচরের ঘর ভেসে গেল (২)পাথরে কাঁদে কেউ দেখেনা, সাগরে কাঁদে তবু অচেনাভালবাসি আমি তোমাকে তুমি বুঝলে নাহৃদয়ের কথা কখনো তুমি জানলে না(২)কিভাবে বেঁচে আছি চেয়ে দেখলে নাএকাকী জীবন আমার শুধুই ছলনাভালবাসি আমি তোমাকে তুমি বুঝলে নাহৃদয়ের কথা কখনো তুমি জানলে না 

...........................

এখনো মাঝে মাঝে, মাঝরাতে ঘুমের ঘোরেশুনি তোমার পায়ের আওয়াজ, যেন তুমি এসেছো ফিরে তুমি চলে গেছ অনেক দূরে, এই মনের আঙ্গিনা ছেড়ে(২)

এই রাত সেই রাত, কেটে গেছে কত রাত কষ্টের হাওয়া বুকে নিয়ে আর পড়ে আছে, কতনা স্মৃতি, বন্দী মনের কারাগারেতুমি চলে গেছ অনেক দূরে, এই মনের আঙ্গিনা ছেড়ে…

তুমি মোর জীবনের ভাবনা

তুমি মোর জীবনের ভাবনা হৃদয়ের সুখের ডোলা নিজেকে আমি ভুলতে পারি তোমাকে যাবে না ভোলা
দুঃখ সুখের পাখি তুমি তোমার খাঁচায় এই বুক সারা জীবন নয়ন যেন দেখে তোমার এই মুখ কন্ঠে আমার দাও পরিয়ে সোহাগের মিলন মালা
ভালোবাসার নদী তুমি আমি তোমার দুই কুল পাগল তুমি ফোটাও যে ফুল আমি তোমার সেই ফুল প্রেমের তরে সইবো বুকে লক্ষ কাঁটার জ্বালা
হাজার তারের বীণা তুমি তুমি সুরের ঝংকার তুমি আমার আষাঢ়-শ্রাবণ তুমি বসন্ত বাহার রাগ-রাগিনীর ফুল-কলিতে কন্ঠে পড়াব মালা
তোমায় নিয়ে লেখা যেন সারা পৃথিবীর গান প্রথম প্রেমের ছোঁয়া তুমি তুমি যে মান-অভিমান সব কবিতার ছন্দ তুমি দুঃখ সুখেরই ভেলা

মন আমার দেহ ঘড়ি

মন আমার দেহ ঘড়ি সন্ধান করি
কোন মিস্তরি বানাইয়াছে
মন আমার দেহ ঘড়ি
ও একখান চাবি মাইরা দিছে ছাইড়া
জনম ধইরা চলতে আছে।।
মাটির একটা কেস বানাইয়া
মেশিন দিছি তার ভিতর
রঙ বেরঙের বার্নিশ করা
দেখতে ঘড়ি কি সুন্দর ভাই
দেখতে ঘড়ি কি সুন্দর।
দেহ ঘড়ি চৈদ্দোতলা
তার ভেতরে দশটি নালা
নয়টি খোলা একটি বন্ধ
গোপন একটা তালা আছে।।
এমন সাধ্য কার আছে ভাই
এ ঘড়ি তৈয়ার করে
এই ঘড়ি তৈয়ার করে ভাই
লুকায় ঘড়ির ভিতরে ভাই
লুকায় ঘড়ির ভিতরে।
তিন কাটা বারো জুয়েলে
মিনিট কাটা হইলো ঢিলে
প্রেম নয়নে বুঝলে পরে
দেখতে পারবে চোখের সামনে।।